1. info@dailyjanatarbarta.com : Admin :
  2. admin2@dailyjanatarbarta.com : Editor Janatar Barta : Editor Janatar Barta
  3. araf@yopmail.com : araf :
  4. editor@dailyjanatarbarta.com : JanatarBarta Editor : JanatarBarta Editor
  5. test@yopmail.com : test :
সংবাদ শিরোনাম :
ভোলার মেঘনায় মালবাহী কার্গোতে ডাকাতি! দূই জলদস্যুকে ধরে ফেললো কোস্ট গার্ড প্রকাশিত কাল্পনিক সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানালেন বিজেপি নেতা জামালউদ্দিন চকেট সিপিডিএ ‘র দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে ক্যারিয়ার উন্নয়ন সপ্তাহ ১৫-২১ অক্টোবর সারাদেশে টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু ৬ মাস ২১ দিন পর দলীয় কার্যালয়ে রিজভী কোনো নির্বাচন নির্বাচন খেলা হবে না: ওবায়দুল কাদের সারাদেশে টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে মাঠ প্রশাসন মূল চালিকাশক্তি: প্রধানমন্ত্রী ভোলার মেঘনায় ৮ টি মালবাহী কার্গো জাহাজে ডাকাতির অভিযোগ! পুলিশের রহস্যময় ভূমিকা সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত

জীবনযুদ্ধে হার নামা না এক হাবিবা পরিবারের জন্য নিজের কিডনি বিক্রি করতে চান!

  • পোস্টের সময়কাল : সোমবার, ১২ জুলাই, ২০২১
  • ১০৩ মোট ভিউস্

নিউজ ডেস্ক!

হাবিবা (১৯) পরিবারের বড় মেয়ে, ইন্টারমিডিয়েট শেষ করে কমার্স কলেজে ভর্তির অপেক্ষা তবে পয়সার অভাবে এখনো নিতে পারেনি এডমিশন। বাড়ি বারপাড়া তবে সেখানে তাদের থাকার মত জায়গা নাই। তাই কুমিল্লা মেডিকেলের পাশে পূর্বপাড়া (জিলানী মাষ্টার বাড়ি) বাড়িতে ভাড়া থাকে। হাবিবা সহ ছোট ২বোন ১ ভাই তারাও লেখাপড়া করে।

বাবা মা সহ ৫জনের সংসার তাদের। বাবা হাতেম মিয়া পেশায় বার্ণিশ মিস্ত্রি। করোনার লকডাউনে বেকার তিনি। মাঝে মাঝে টুকটাক কাজ করে যা পায় তা দিয়ে খাবার কেনাও হয় না দু বেলার। এদিকে হাবিবার মায়ের ব্রেস্ট ক্যান্সার চিকিৎসার জন্যও কোনো টাকা নেই। ওদিকে বাড়িভাড়া বাকি কয়েক মাসের, বাড়িওয়ালা চাপ দিচ্ছে ভাড়ার জন্য নয়তো বেড়িয়ে যেতে হবে বাড়ি থেকে । পরিবারের বড় মেয়ে অসহায় হাবিবা পৃথিবী নামক যুদ্ধক্ষেত্রে জীবন নামের যন্ত্রণা কতটা ভয়ংকর তা উপলব্ধি করছে হারেহারে। মায়ের ঔষধ কেনার টাকা নেই ঘরে খাবার সংকট দোকানদার বাকী দেয়না টিউশনি নেই, নেই লকডাউনে ইনকামের কোন রাস্তাও।

আর তাই নিরুপায় কন্যা হাবিবা মায়ের চিকিৎসা, ঘরের খোরাক, বাসা ভাড়া এসবের জন্য তার একটি কিডনী বিক্রি করতে চায়। সামর্থ্য থাকুক বা না থাকুক চিকিৎসার অভাবে মায়ের মৃত্যু ছোট ভাই বোনের অনাহারে থাকা সহ্য করতে পারছে না সে। ফোনে কথা বলার সময় নিজের পরিবারে দৈন্যদশার কথাগুলো বললো কাঁদো কাঁদো সুরে। ভাড়া বাড়িতে গিয়ে একবার তার পরিবারটিকে দেখে আসার কথাও জানালো। আহা জীবন!! তার জায়গায় একবার নিজেকে ভাবলাম, মাাথাটা কাজ করছিলো না। নিয়তি কতটা কঠিন, এই ১৯ বছর বয়সে একটি কন্যা যেন পৃথিবীর সবটুকু নির্মমতার সাথে লড়াই করে ক্লান্ত।

শিক্ষিত আত্মসম্মানী হাবিবা ভিক্ষা চায় না, চায় না করুনা আর তাই নিজের একটা কিডনির বিনিময়ে জীবন যুদ্ধে বেঁচে থাকতে চায়। লেখাপড়া শেষ করে একটা চাকরি করতে চায় পরিবারের জন্য তাদের বাঁচানোর জন্য।

(আর হা দয়াকরে অপ্রয়োজনে অসহায় মেয়েটির ফোনে কল করে বিরক্ত না করার জন্য বিনীত অনুরোধ রইলো)
উম্মে হাবিবা Bikash no– 01787259315

শেয়ার করুন....

আরো দেখুন